বাংলাদেশের প্রথম যুদ্ধ শিশু জয়

বেশিরভাগ যুদ্ধ শিশুকেই বিজয়ের পর কানাডা, সুইডেন ও নরওয়েতে পুনর্বাসন করা হয়েছিল। এদের একজন জয় (নামটা বাংলাদেশের জয়ের সঙ্গে সম্পর্কিত বলে জানিয়েছেন তার দত্তক পিতা)। প্রথমে মোজেস নিকলাস এবং এখন সভেন নিকলাস স্টর্মবার্গ নাম। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর একটি বোমাবিধ্বস্ত বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এরপর তার ঠাঁই হয় হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে। সুইডেন টিভির হয়ে সে সময় ঢাকায় যুদ্ধ কাভার করছিলেন সভেন স্টর্মবার্গ। ১৬ ডিসেম্বর জয়ের বয়স মাত্র ১০ দিন। সভেন লামপেল নামে একজন ডাক্তার হলি ফ্যামিলির দায়িত্বে ছিলেন তখন। আরেকজন জার্মান স্কুপলিন সেখানে কাজ করছিলেন। যুদ্ধোত্তর কালে এত শিশু নিয়ে হিমশিম খাচ্ছিলেন। এদিকে স্টর্মবার্গ দুই মেয়ের বাবা, তার স্ত্রী কে নিয়ে দেখা করলেন স্কুপলিনের সঙ্গে। তাকে বুঝিয়ে দত্তক নেন জয়কে। বাংলাদেশের বাইরে নিয়ে যাওয়া প্রথম যুদ্ধ শিশু জয়।

জয়ের বয়স এখন ৩৫ ছুঁই ছুঁই। স্টকহোমে পড়াশোনার পর এখন সহ-মনোবিদ হিসেবে কাজ করছেন জয়। দেশে এসেছিলেন। তার ভাষ্য, আমি কোনো ধর্মে বিশ্বাসী নই। স্টকহোমেই বেড়ে উঠেছি, এখানেই এক হাসপাতালে সহকারী মনোবিদ হিসেবে কাজ করছি। বাংলাদেশে গিয়েছিলাম, দেখি ওখানকার সবাই আমার মতোই দেখতে। অনেক ছোট থাকতে জেনেছি আমার এখনকার মা-বাবা আমার আপন নন। আমি আমার সত্যি বাবা-মার খোঁজ পাইনি, জানি না তারা বেচে আছেন কীনা।

স্টর্মবার্গ নিজেও সে সময়কার ডকুমেন্ট নিয়ে দেখা করেছেন বিভিন্ন মহলে। জয়ের কোনো আত্মীয়স্বজন আছেন কীনা খোঁজ করেছেন। পাননি।