দ্য লিজেন্ডারি ক্র্যাক প্লাটুন...

দ্য লিজেন্ডারি ক্র্যাক প্লাটুন... এটি একটি ছবি, মুক্তিযুদ্ধের সময় তোলা বিরল একটা ছবি। এর সদস্যরা পরিচিত ছিলেন দ্য ক্র্যাক প্লাটুন নামে। খালেদ মোশাররফ এবং ক্যাপ্টেন হায়দারের তত্বাবধানে দুই নম্বর সেক্টরের মেলাঘর থেকে ট্রেনিং নিয়ে আসা এই গেরিলা দলের সবাই ছিলেন ঢাকার ছেলে। ঢাকার অলিগলি হাতের আঙুলের মতোই চিনতেন। তাদের ওপর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিলো ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোয় বোমা ফাটিয়ে জানান দেওয়া যে মুক্তিযুদ্ধ চলছে। গেরিলারা ঢাকাতেই আছে। মূলত অধিনায়ক মোফাজ্জল
..... বিস্তারিত

কামাল-জামালের মুক্তিযুদ্ধ

কামাল-জামালের মুক্তিযুদ্ধপ্রথমেই শেখ কামালের কথা বলি। বঙ্গবন্ধুর বড় ছেলে মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশ সামরিক বাহিনীর প্রথম ব্যাচের ক্যাডেট অফিসারদের একজন। ১৯৭১ সালের ৯ অক্টোবর এদের পাসিং আউট হয়। এরপর সেকেন্ড লেফট্যানেন্ট শেখ কামাল প্রধান সেনাপতি এমএজি ওসমানির এডিসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। শেখ জামাল পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে গৃহবন্দী ছিলেন। সেখান থেকে পালিয়ে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। মুজিব বাহিনীর একজন সদস্য হিসেবে যুদ্ধ করেছেন। ২ ডিসেম্বর লন্ডনের গার্ডিয়ান পত্রিকায়
..... বিস্তারিত

বাংলাদেশের প্রথম যুদ্ধ শিশু জয়

বাংলাদেশের প্রথম যুদ্ধ শিশু জয়বেশিরভাগ যুদ্ধ শিশুকেই বিজয়ের পর কানাডা, সুইডেন ও নরওয়েতে পুনর্বাসন করা হয়েছিল। এদের একজন জয় (নামটা বাংলাদেশের জয়ের সঙ্গে সম্পর্কিত বলে জানিয়েছেন তার দত্তক পিতা)। প্রথমে মোজেস নিকলাস এবং এখন সভেন নিকলাস স্টর্মবার্গ নাম। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর একটি বোমাবিধ্বস্ত বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এরপর তার ঠাঁই হয় হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে। সুইডেন টিভির হয়ে সে সময় ঢাকায় যুদ্ধ কাভার করছিলেন সভেন স্টর্মবার্গ। ১৬
..... বিস্তারিত

মেজর নাজমুল হক : অকৃতজ্ঞ জাতির এক অচ্ছ্যুৎ সেক্টর কমান্ডার

মেজর নাজমুল হক : অকৃতজ্ঞ জাতির এক অচ্ছ্যুৎ সেক্টর কমান্ডারওভাবে মরাটা উচিত হয়নি মেজর নাজমুল হকের। নির্ঘুম কয়েক রাত শেষে বৃষ্টি ভেজা পাহাড়ি রাস্তায় জিপ চালাচ্ছিলেন। চশমার কাচটা বুঝি ঝাপসা হয়ে এসেছিলো। গাড়ি উল্টে খাদে পড়ে মৃত্যুবরণ করেছিলেন তিনি। কিন্তু ওভাবে নয়, তার চেয়ে বরং কোনো পাকিস্তানী ব্যাটেলিয়ানের দিকে দু হাতে মেশিনগানের গুলি ছুড়তে ছুড়তে মরলে সেটা একটা কাজের কাজ হতো। বীরশ্রেষ্ঠ না হোক, একটা বীর প্রতীক কিংবা বীর বিক্রম জুটেই যেত। যুদ্ধে বীরত্ব
..... বিস্তারিত

স্বাধীনতার বিস্মৃত সেই ডাক-হরকরাদের কথা

স্বাধীনতার বিস্মৃত সেই ডাক-হরকরাদের কথাস্বাধীনতার পর এ নিয়ে কোনো কথা ওঠেনি। রক্তাক্ত বাংলাদেশ কার ডাকে, কার নামে স্বাধীন হয়েছিলো এ নিয়ে প্রশ্ন করেনি কেউ। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনককে হত্যা করার পরপরই শুরু হয়ে গেলো মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বেআব্রু করার চক্রান্ত। বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের এবং হত্যাকাণ্ডের বেনিফিশিয়ারীদের প্রতিষ্ঠিত করার জন্য ইচ্ছেমতো লেখা হতে লাগলো তা। আর পাঠ্যবই থেকে শুরু করে নানা সংবাদমাধ্যম ব্যবহার করে গেলানো হলো নতুন প্রজন্মকে। তবুও শেষ
..... বিস্তারিত